সিংগাইরে মায়ের কিডনিতে বাঁচলেন ছেলে

 

মো: উজ্জল হোসেন ঃঃ
মানিকগঞ্জের সিংগাইরে আছিয়া বেগম (৫০) নামে এক মায়ের দেওয়া কিডনিতে সুস্থ হলেন ছেলে। উপজেলার বলধারা ইউনিয়নের ছোট কালিয়াকৈর গ্রামের সাদেক আলীর ছেলে মোঃ ইসরাফিল (৩৪) দীর্ঘদিন যাবৎ কিডনি রোগে ভুগছিলেন।

পরিবার সূত্রে জানা যায়, অনেক চিকিৎসা করেও তার দুটি কিডনি ভালো হয়নি। একপর্যায়ে ডাক্তার জানান, ইসরাফিলের শরীরে একটি কিডনি প্রতিস্থাপন না করলে তাকে আর বাঁচানো যাবে না। ছেলেকে বাঁচাতে নিজের একটি কিডনি দিতে রাজি হন ইসরাফিলের মা। পরে সকল প্রকার পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষ ডাক্তার জানান মায়ের একটি কিডনি দিয়ে ইসরাফিলকে বাঁচানো সম্ভব। এতে মা-ছেলে দুজনেই সুস্থ থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।

বৃহস্পতিবার রাতে ঢাকার শ্যামলীর একটি হাসপাতালে মা-ছেলের কিডনি প্রতিস্থাপনের অপারশন করা হয়। বর্তমানে মা-ছেলে দুইজনই সুস্থ আছেন।

ইসরাফিলের ভাতিজা বলেন, ‘আমার কাকা দীর্ঘদিন ধরে কিডনি রোগে ভুগছিলেন। তার চিকিৎসা বাবদ অনেক টাকা খরচ হয়েছে। ডাক্তার বলেন আমার দাদির একটি কিডনি কাকাকে দিলে তিনি সুস্থ হয়ে যাবেন। দাদি সাথে সাথে নিজের কিডনি দিতে রাজি হয়ে যান। বৃহস্পতিবার রাতে তাদের অপারেশন হয়েছে। বর্তমান দুইজনই সুস্থ আছেন।’

শিরোনাম