শাশুড়ীকে ৬ টুকরো করে হত্যা করলো পুত্রবধূ

কফিলউদ্দিন,জেলা প্রতিনিধিঃ
কক্সবাজারের রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছড়ির মধ্যম উমখালী গ্রামে বৃদ্ধা শ্বাশুড়ি মমতাজ বেগমকে নৃশংসভাবে খুন করেছে নিজেরই পুত্রবধূ রাশেদা বেগম।নিহত মমতাজ বেগম (৬০) স্থানীয় মৃত গোলাম কবিরের স্ত্রী। ঘাতক রাশেদা বেগম নিহত মমতাজ বেগমের ছেলে আলমগীরের স্ত্রী। পুলিশ এই হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পুত্রবধূ রাশেদা বেগমকে গ্রেফতার করেছে।

সুত্র মতে, মমতাজ বেগমের ছেলে আলমগীরের স্ত্রী রাশেদা বেগমের সাথে শ্বাশুড়ি মমতাজ বেগমের দীর্ঘদিন ধরে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল। সেই কলহের জের ধরেই শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে তাকে গলা কেটে হত্যা করে রাশেদা বেগম। পরে সেই লাশ ৬ টুকরো করে বাড়ির আঙ্গিনায় বস্তাভর্তি করে গর্তে পুঁতে রাখে।গোপন সূত্রে খবর পেয়ে শনিবার দুপুরে রামু থানা পুলিশ বস্তাভর্তি মমতাজ বেগমের লাশ উদ্ধার করে। পুত্রবধূ রাশেদার স্বীকারোক্তি মতে হত্যাকান্ডের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে।

জানা গেছে, নিহত শ্বাশুড়ি মমতাজ বেগম খুনি পুত্রবধূ রাশেদা বেগমের আপন ফুফু।স্থানীয় ইউপি সদস্য দুদু মিয়া বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। অভিযুক্ত রাশেদা স্বীকার করে যে, গতকাল সকালে নিহত মমতাজ বেগমের সাথে তর্কাতর্কির এক পর্যায়ে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। এরপর টুকরো টুকরো করে বস্তাবন্দি কর লাশ। পরে বাড়িতে কেউ না থাকার সুযোগে পাশের টিউবওয়েলের পাশে বস্তাবন্দি করে লাশ মাটিচাপা দেয়।

পারিবারিক কলহের জের ধরে এই ঘটনা বলে জানান স্থানীয়রা। ঘটনাস্থলে থাকা রামু থানা পুলিশের উপ-পরিদর্শক মো: মন্জু বলেন, লাশ উদ্ধার করে সুরতহাল প্রতিবেদন তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার সরকারি মেডিক্যাল কলেজ মর্গে লাশ পাঠানো হবে।