বাংলাসাহিত্যে কালজয়ী মহাকবি সিরাজ উদদৌল্লাহ এক উজ্জ্বল নক্ষত্র

 

মো.আলতাফ হোসেন ঃঃ
মহাকবিসিরাজ উদ দৌল্লাহরকবিতানিয়েমন্তব্য করারনূন্যতমসাহিত্য বোধআমার নেই ——- শুধুমাত্র এ টুকুবলবতাঁরকবিতাযতবারপড়েছিততবার ই মনেহয়েছেবারংবারপড়ি।যারমাঝেরয়েছেপ্রাচীন থেকে বর্তমান প্রেমকাহিনিরসুনিপূন উপস্থাপনা।রয়েছেসাহিত্যের চরম রসবোধ,রয়েছেকাব্যেরপ্রতিটি স্তরেরচমৎকারধাপগুলোঅনুসরণ।প্রাচীনমধ্যযুগের বৈষ্ণব পদাবলী,মঙ্গল কাব্যে, রোমান্টিকপ্রনয়উপখ্যানেরকবিগনকখনোঅনুবাদের অনুকরণধর্মনিরপেক্ষতারআড়ষ্টতারআশেপাশে থেকে কলমকে মুক্তি দিতেপারেনি।আরআধুনিকএকজনসার্থককবিতাঁরকবিতারছন্দেরতালেমানবতার মুক্তির ও সকলঅনুভূতিরদ্বার খোলা রেখে ই কবিতালিখবেন, সেখানে স্থানপাবেযুগান্তরেরইতিহাস,ঐতিহ্য, রাজনীতি,সমাজনীতি,নারীরসাতন্ত্রবাদ আর সেটাই আধুনিকমহানকবিসিরাজ উদ দৌল্লার লেখনীরঅন্যতমঅলংকার।

কবিরবাংলাদেশেরকথামহাকাব্যের ১ম খন্ডসহ ১৫ টিকাব্যগ্রন্থ প্রকাশিতহয়েছে।বাংলা দেশেরকথামহাকাব্যের ১ম খন্ডে ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানীরআগমন থেকে শুরুকরে ১৮৫৭ সালেরসিপাহী বিদ্রোহপর্যন্তসুন্দরভাবে উপস্থাপনকরাহয়েছে।২য় খন্ডে বৃটিশশাসন থেকে শুরুকরে ১৯৭১ সালের ১৬ ই ডিসম্বরে আমাদের স্বাধীনতাসংগ্রামেরমহানবিজয়পর্যন্তশীঘ্র ই প্রকাশিতহবে।কবিরঅন্যান্য কাব্য গ্রন্থেরমধ্যে স্বাধীনতাতুমি,আত্নারশরণ, পদ্মারতীরে, শেখমুজিবুররহমান, মেঘের ভেলা, সবুজমাঠে,শিকল ভেঙ্গে ফেল,মোহনা, হারারবাবা,জন্মেছিভালবেসে, রূপালীনদীর দেশে,দেশেরমাটিএবংইংরেজিকাব্যগ্রন্থ লাভ ফর বিউটিউল্লেখ যোগ্য।

প্রকৃতি প্রেমিক কবির কবিতায় দেশ মা-মাটিমানুষেরকথাই বেশীফুটেউঠেছে।মামাটিমানুষেরকবিহিসেবে স্বীকৃতিওএসেছেতাঁর।কবির ছন্দ গাঁথাবাংলা ও ইংরেজীকবিতাগুলিআমাদের একদিকে যেমন স্মরণকরিয়ে দিয়েছে শেক্স পিয়ার,ওয়ার্ডসওয়ার্থ,পি বিশেলী,জনমিল্টন,জনকিটস,পারস্যেরকবি ফেরদৌসী ও ইতালিয়ানকবি দান্তেরকথা তেমনি স্মরণকরিয়ে দিয়েছে মাইকেল,রবীন্দ্র,নজরুলজীবনানন্দ দাস ও বন্দে আলীমিঞারকথা।কবির ছন্দ গাঁথা রোমান্টিককবিতা গুলিতেতাঁরমানসপ্রতিমারপ্রতিপ্রকাশিতহয়েছেগভীরঅনুরাগ,অনুভূতি ও হৃদয়েরবন্ধনেরকথা।

“এই বাংলার মুক্ত বাতাসে শ্যামল আর সবুজের আবেশে একাকার হয়ে তুমি আমি দুজনে অটুট হৃদয়ের বন্ধনে।”কবিরমানসপ্রতিমারপ্রতিতাঁরিঅনুরাগ যেন বেঁচে থাকেএর ই আকুলমিনতি ও গভীরঅনুভূতিবারংবার ব্যক্ত করেছেনতিনিপ্রশ্নকবিতায়।রাধা কৃষ্ঞইউসুফজুলেখারবীন্দ্রকাদম্বরী ওমমতাজশাহজাহানেরঅমরঅনুরাগ স্মৃতিতেতাঁরমানসী যেনতাঁকেবরণকরেলয় এই আকুতিপ্রকাশকরেছেনতিনিতাঁরিপ্রতি।কল্পনা ডোরেকবির লেখাতারিমানসীরপরশেহয়েউঠুক ছন্দময়—-এই প্রত্যাশাপাঠককুলেরও।কবিরভাষায়

জাগেযদি অনুরাগেপূর্ণ জ্যোতি এতে কি হে কার,এত ক্ষতি???”কবিহৃদয়েঅনুরণিতহয়েছে এক সংশয়তাঁরিমানসিযদি জেগে নাহি উঠে তবেঅনাগতকবিআজিকারকবি জ্বলেছেবিরহতাপিতহৃদয়েবলেকরিবেন বন্দনাগীতি। “মানসপ্রতিমাযদি নাহি উঠে জেগে নাই সবাযদি করেগানআমারিবাগে তবু গাহিবেগান আমারেলয়ে জ্বলে ছিলকবি এক বিরহতাপিতহৃদয়ে।”

কবিরএকান্তআন্তরিকশুভাকাঙ্খীসালমা ফেরদৌসী ও আশ্রাফিজাহানসনি। আশ্রাফিজাহানসনিকবিরসম্পর্কে বলেনতাঁরইংরেজী ও রোমান্টিকবাংলাকবিতা গুলিআমাদের কে ইংরেজীসাহিত্যেরকবিপি বি শেলী ও জনকিটসেরকথা স্মরণকরিয়ে দেয়।তিনিবলেন, মহাকবিসিরাজ উদ দৌল্লাহমানসপটসৃষ্টিরকবি।আপনমানসপটেতিনিঅবলীলায়রচেযান কোনবিমূর্ত মায়াবী বৈপরীত্বমূলকঅস্তিত্ব।তাঁর লেখনীতেপাঠকসমাজগঠনকরেনিজস্ব আল্পনা যেখানেকবিরপ্রতি জেগে উঠে নতুনঅনুরাগ।সৃষ্টআল্পনার ছোঁয়ায়সুখকরপরিবর্তনহয়মনোমন্দিরে। তবেপ্রশ্নকবিতায়কবিরসংশয়ভুল।তাপিতহৃদয়েনয়,বন্ধুত্ব প্রীতিরবন্ধনেকবিচিরদিন বেঁচে থাকবেনআমাদের অন্তরে।তাঁরঅসামান্য কীর্তি আজীনতাঁকেজ্বলজ্বলকরেরাখবে বাঙ্গালির চেতনায় প্রেরণায়।প্রশ্নকবিতাপড়েসালমা ফেরদৌসীবলেছেন,

” হে কবি কেন,তাপিতহৃদয়ে সাগরেরজলকি হে,গিয়েছেশুকায়ে এই মনে প্রীতিযত আছে অটুটরবে,সকলিযাবেতবকাছে।”বৈঞ্চবআদি কবিগনপ্রাচীনধর্ম নির্ভরচরিত্র গুলোনিয়েনিজেরমনেরকল্পনারমানসপ্রতিমাকেরাধাচরিত্রে মেখেমেখেকবিতালিখতো —–এর ই বাস্তবনিদর্শনহলোমধ্যযুগের বৈষ্ণবপদাবলী।আর এ সব বিশ্লেষনকরেআধুনিককবি গুরুলিখেছিলেন।

“সত্য করেকহোমরে হে বৈষ্ণবকবি কোথাতুমি পেয়েছিলে এ প্রেমছবি! কোথাতুমিশুনেছিলেএতোগান বিরহতাপিত হেরিকাহারনয়ান,রাধিকার অশ্রু আঁখি পড়েছিলমনে???”মূলতকবিচিত্রেরআবহমানকল্পনারমানসীদের অনুপ্রেরণায়যুগেযুগেসাহিত্যেরঝুলিটিপরিপূর্ণতা পেয়েছিলপাচ্ছেএবংপাবে।আমিজানিআমাদের প্রিয়মহাকবিসিরাজ উদ দৌল্লাহ ও এ সব কবিদের ব্যতিক্রমনয়।তাই তোতাঁর তীক্ষ পেপ্রপরিণয়ের মসির আঁচড়েআধুনিক মানবঅন্দরের অন্দরমহলের বেড়ার বেড়িডিঙিয়ে সে কল্পনারমানসীটিউঁকি দিয়েছেনবারবার——-বেঁচে থাক সে মানসপ্রতিমা জেগে থাক সে প্রেমের মসিধারা অনন্তকাল।চলতে থাকুককবিরমানবতার ও অনুরাগের দুর্দান্তমসিধার। কবিরবন্ধুপ্রতিমশুভাকাঙ্খীদের প্রতিশ্রুতিতে কেটে গেছে পাঠককুলেরসংশয়।আমাদের পাশাপাশিতাঁদের হৃদয়েওকবি বেঁচে থাকবেন চিরঅজর অক্ষয় অমর হয়ে।কবি রস কলি তাঁরা বরণ করুক অনুরাগ ভরে আর কবির হৃদয় চেতনাঅনুভূতি এবং লেখনিতে ফুটে উঠুক তাঁর দুই শুভাকাঙ্খীসালমা ফেরদৌসী ও আশ্রাফীজাহানসনিচিরঅমরহউককবিও কবিরকল্পনারমানুষটি —— এই প্রত্যাশা।

সাবেকজাতীয় ক্রীড়াবিদ,সভাপতিশারীরিকশিক্ষাবিদ সমিতি,
চেয়ারম্যানগ্রিনক্লাব, গবেষকসাংবাদিক ও কলামিস্ট