দুধের সাথে ঘুমের ট্যাবলেট খাইয়ে শ্বশুর ধর্ষণ করল পুত্র বধুকে

 

বগুড়া প্রতিনিধি ঃঃ
বগুড়ার শিবগঞ্জে পুত্রবধূকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় রোববার ওই গৃহবধূ লম্পট শ্বশুরের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করলে রাতেই তাকে আটক করে পুলিশ। আটক শ্বশুরের নাম মিলন মিয়া। সে উপজেলার বিহার ইউনিয়নের বিহার উত্তরপাড়া গ্রামের বাসিন্দা।

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার বিহার ইউনিয়নের বিহার উত্তরপাড়া গ্রামের মিলন মিয়া তার ছেলে ট্রাক ড্রাইভার সাব্বির হোসেনের স্ত্রীর ওপর কুদৃষ্টি পড়ে। ছেলে বাড়িতে না থাকার সুযোগে লম্পট শ্বশুর মাঝেমধ্যেই গভীর রাতে ছেলের বউয়ের শয়নকক্ষে প্রবেশ করে শরীরে হাত দেয়। এতে টের পেয়ে পুত্রবধূ জেগে উঠলে শ্বশুর পালিয়ে যেত। মামলায় আরো উল্লেখ করেছেন যে, কৌশল পরিবর্তন করে লম্পট শ্বশুর, তার পুত্রবধূকে দুধের সঙ্গে নেশা জাতীয় ঘুমের ট্যাবলেট মিশিয়ে খাইয়ে দিতো। তার পুত্রবধূ দুধ পান করার পর গভীর ঘুমে অচেতন হয়ে পড়লে লম্পট শ্বশুর তার শয়নকক্ষে প্রবেশ করে তাকে ধর্ষণ করতো।

পুত্রবধূ বেলা ১২টায় ঘুম থেকে জেগে তার কাপড় চোপড় এলোমেলো দেখে সন্দেহ হলে, সে কৌশলে মোবাইল দিয়ে ভিডিও রেকর্ডে চেষ্টা করে। গত ২৬শে জুলাই গৃহবধূ শয়নকক্ষে ঘুমানোর ভান করে থাকলে গভীর রাতে লম্পট শ্বশুর পুত্রবধূর শয়নকক্ষে প্রবেশ করে তার পরনের কাপড় খুলে ফেলে ধর্ষণ করতে থাকলে পুত্রবধূ সুকৌশলে নিজেই আপত্তিকর অবস্থার ভিডিও ধারণ করে। এরপর তার বাবাকে সঙ্গে নিয়ে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিদের কাছে সমঝতার প্রচেষ্টায় ব্যর্থ হলে রোববার গৃহবধূ তার লম্পট শ্বশুরের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করে। রাতেই থানা পুলিশ লম্পট শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করে।

এ ব্যাপারে থানার অফিসার ইনচার্জ এসএম বদিউজ্জামান বলেন, লম্পট শ্বশুর কর্তৃক গৃহবধূ ধর্ষণের মামলা নেয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই এ কার্যকলাপের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে শ্বশুরকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।